মঙ্গলবার  ২৪শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   মঙ্গলবার  ১১ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার মজুমদার হাটে অবৈধ ভাবে সরকারি সম্পত্তি যবর দখল

জুন ২২, ২০১৬

সুন্দরগঞ্জ

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার মজুমদারহাটে সরকারের সম্পত্তি (খাস খতিয়ান) দীর্ঘদিন হতে অবৈধ দখলে নিয়ে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ব্যবসা করে আসছে ঐ এলাকার প্রভাবশালী নুরুল হক মেম্বার, আলহাজ্জ আব্দুল হক, মিলন মিয়া, অহেদুল, সালাম মিয়া সহ আরও কয়েকজন।

জানা গেছে, উপজেলা রংপুর টু গাইবান্ধা সড়ক ও হাতিয়া চৌরাস্তা হয়ে মজুমদারহাট রাস্তার পূর্ব সীমানায় অবস্থিত শান্তিরাম ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী মজুমদারহাট। এ হাটে প্রায় ৩০ একর সরকারি খাস জমি থাকলেও স্বাধীনতার পর হতে সরকার এখান থেকে কোন রাজস্ব পায়নি। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকার প্রভাবতশালী নুরুল হক মেম্বার, ছানাউল ইসলাম, মিলন সরকার, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান সরকার মান্নান, আলহ্জ্বা আব্দুল হক সহ প্রায় ৩০ জন অবৈধ দখলদার জায়গাগুলি নিজেদের অবৈধ দখলে নিয়ে ইচ্ছা মত কাঁচা, পাকা ও আধা পাকা ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। এদের কেউ কেউ আবার নিজেদের জি বলে দাবী করছে। দখলকারীদের দখল শর্ত সরকারি লীজ ও খাজনা খারিজ কিছুই নেই।

তবে ভূমি অফিস সংশ্লিষ্ট কিছু স্বার্থনেশী মহল দখলকারীদের সাথে যোগসাজস করে নিজের পকেট ভারি করে চলেছে এর সাথে রয়েছে উপজেলা অফিসের কিছু নি¤œ কর্মচারীও জড়িত অপর দিকে সরকারি জমি ব্যবহার করা হলেও সরকার প্রতি বছর সেখান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব হারাচ্ছেন। এলাকাবাসী ও সচেতন মহলের দাবী মজুমদাহাটে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে সরকারি জমিগুলো লীজের আওতায় আনা হলে সরকারি হাবে রাজস্ব তহবিলে প্রতি লক্ষ লক্ষ টাকা আয় বাড়বে। এজন্য গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

বিশেষ প্রতিনিধি, গাইবান্ধা-২২শে জুন, ২০১৬ ইং