বুধবার  ২৫শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   বুধবার  ১২ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

ভারত মাতাচ্ছে বরিশাল ঈদবাজারে

জুন ২৭, ২০১৬

ঈদবাজার

ঈদ যত গনিয়ে আসছে মেয়ে ক্রেতা ভিড়জমায় মার্কেটগুলোতে। নতুন নতুন সংগ্রহে নাম ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতেই ওই দেশের নাম নেয়া হয়েছে। আর ঈদের পরে শুরু হবে পূজার বাজার । যে কারণে সব ধর্মের লোকদের আকৃষ্ট করতে নাম ব্যবহার করা হয়।ভারতের পোষাকের নাম শুনেই ক্রেতারা আকৃষ্ট হলে কে ছাড়বে এ সুযোগ। এদিকে পবিএ ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ক্রেতাদের উপছে পরা ভীরে জমে উঠেছে বরিশালের ঈদবাজার। বিভিন্ন শপিংমলসহ ফুটপাথগুলোয় সেজেছে বাহারি সাজে।বছরের একটি মাত্র উৎসবকে সামনে রেখে অস্থায়ী হলেও বাহারি সাজে সজ্জিত করে ফুতপাতগুলো দখল করেছে সাজ সামগ্রীর ব্যবসায়ীরা। শহরের বিভিন্ন নামিধামি দোকানের পাওয়া যাচ্ছে ,লেহেঙ্গা ,বেহুলা সহ সব রকমের কাপড়ের সমাহার। প্রতিদিনই ভিড় বাড়ছে আগাম ঈদ বাজারের মানুষের । সকাল থেকেই গভীর রাত পযর্ন্ত নারী ক্রেতাদেরই ভিড় লক্ষ করা যায় মার্কেট গুলোতে। উন্নতমানের দোকানে যেসব কাপড় পাওয়া যায়, ঠিক সেসব কাপড় নগর ভবনের সামনে থেকে কম মূল্যে পাওয়া যায়। কিভাবে কম মূল্যে কাপড় বিক্রি করছেন- জিজ্ঞাসা করলে ব্যবসায়ীরা জানান.এখানে যারা ব্যবসায় করেন তাদের দিতে হয় না দোকান ভাড়া, নেই কর্মচারীদের বেতন এবং নেই কোন ইলেকট্রনিকস বিল বা খাজনা। তাই বাইরে থেকে কাপড় যে দামে কেনা হয় তার ওপর কিছুটা লাভ রেখেই বিক্রি করা হয়। আর নামিধামি মার্কেটগুলোতে চড়া মূল্যে পোষাক হাকা হয়েছে । যার ফলে ফুতপাতে পোষাকের মূল্য কম থাকায় মেয়ে ক্রেতারা তাদের সাধ্যমত পোষাক ক্রয় করতে পারে।। মার্কেট গুলোতে বিক্রিও হচ্ছে বেশ।

ব্যবসায়ীরা। বরিশালের ঈদবাজারে এখন ভারত- নিয়ে মাতামাতি শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা। মেয়েদের হরেক রকমের পোষাকের ভারত-পাকিস্তানের নাম করে ক্রেতা আকর্ষণের চেষ্টা করছেন দোকানিরা। বরিশালের শহরে গিজ্জামহাল্লা মার্কেট,চকবাজার, মহসিন মার্কেট, ফজলুল হক এভিনিউ ,সাগরদী মার্কেট, বটতলা বাজার, সদরস্থ ফাতেমা সেন্টার মার্কেটে ও শপিংমলে শোভা পাচ্ছে ্ওই দুই দেশের নাম। মেয়েদের ইন্ডিয়ান থ্রি পিসের সাথে পাকিস্তানি লোন ফ্রি কিংবা পাকিস্তানি লোন থ্রি পিসের সাথে ইন্ডিয়ান প্লাজু ফ্রি। এই নামে ক্রেতারা ছুটছেন দোকানগুলোয়

লাগায় অসাধু ব্যবসায়ীরা। বরিশালের ঈদবাজারে এখন ভারত- পাকিস্তান নিয়ে মাতামাতি শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা। মেয়েদের হরেক রকমের পোষাকের ভারত-পাকিস্তানের নাম করে ক্রেতা আকর্ষণের চেষ্টা করছেন দোকানিরা। বরিশালের শহরে গিজ্জামহাল্লা মার্কেট,চকবাজার, মহসিন মার্কেট, ফজলুল হক এভিনিউ ,সাগরদী মার্কেট, বটতলা বাজার, সদরস্থ ফাতেমা সেন্টার মার্কেটে ও শপিংমলে শোভা পাচ্ছে ্ওই দুই দেশের নাম। মেয়েদের ইন্ডিয়ান থ্রি পিসের সাথে পাকিস্তানি লোন ফ্রি কিংবা পাকিস্তানি লোন থ্রি পিসের সাথে ইন্ডিয়ান প্লাজু ফ্রি। এই নামে ক্রেতারা ছুটছেন দোকানগুলোয় বরিশাল গিজ্জামহাল্লার মার্কেটের এক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি জানান, ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতেই ওই সব দেশের নাম নেয়া হয়েছে। আর ঈদের পরে শুরু হবে পূজার বাজার । যে কারণে সব ধর্মের লোকদের আকৃষ্ট করতে নাম ব্যবহার করে ব্যবসায় করছি। এতে মোনাফা ভালোই হচ্ছে। এই দুই দেশের পোষাকের নাম শুনেই ক্রেতারা আকৃষ্ট হলে কে ছাড়বে এ সুযোগ। এদিকে পবিএ ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে দারুণভাবে জমে উঠেছে বরিশালের ঈদবাজার। বিভিন্ন শপিংমলসহ ফুটপাথগুলোয় তিল ধারনের জায়গা নেই।

সর্বএই দখল করেছে মৌসমী ব্যবসায়ীরা। এদিকে শহরের বিভিন্ন নামিধামি দোকানের নাম দিয়ে জমে উঠেছে মেয়েদের সব রকমের কাপড়ের সমাহার। প্রতিদিনই ভিড় বাড়ছে মেয়েদের। সকাল থেকেই গভীর রাত পর্যন্ত নারী ক্রেতাদেরই ভিড় লক্ষ করা যায় মার্কেট গুলোতে। উন্নতমানের দোকানে যেসব কাপড় পাওয়া যায়, ঠিক সেসব কাপড় নগর ভবনের সামনে থেকে কম মূল্যে পাওয়া যায়। কিভাবে কম মূল্যে কাপড় বিক্রি করছেন- জিজ্ঞাসা করলে ব্যবসায়ীরা জানান.এখানে যারা ব্যবসায় করেন তাদের দিতে হয় না দোকান ভাড়া, নেই কর্মচারীদের বেতন এবং নেই কোন ইলেকট্রনিকস বিল বা খাজনা। তাই বাইরে থেকে কাপড় যে দামে কেনা হয় তার ওপর কিছুটা লাভ রেখেই বিক্রি করা হয়। আর নামিধামি মার্কেটগুলোতে চড়া মূল্যে পোষাক হাকা হয়েছে । যার ফলে ফুতপাতে পোষাকের মূল্য কম থাকায় মেয়ে ক্রেতারা তাদের সাধ্যমত পোষাক ক্রয় করতে পারে।। মার্কেট গুলোতে বিক্রিও হচ্ছে বেশ।

বরিশাল প্রতিনিধি- ২৭শে জুন, ২০১৬ ইং