শুক্রবার  ২৭শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   শুক্রবার  ১৪ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

ফুলবাড়ীতে রাস্তা দখল করে দিনের বেলায় ট্রাক-কাভার্ড ভ্যানের মালামাল লোড-আনলোডঃ জনদুর্ভোগ

জুলাই ২৬, ২০১৬

জনদুর্ভোগ

মোস্তাফিজুর রহমান সুমন/

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে রাস্তা দখল করে প্রতিনিয়ত দিনের বেলায় ট্রাক-কাভার্ড ভ্যানের মালামাল লোড-আনলোড করা হয়। ফলে রাস্তার দু’ধারে সাইকেল, মটর সাইকেল, ভ্যান, রিকশা, দীর্ঘ সারি পড়ে যায়। সৃষ্টি হয় তীব্র আকারের যানজটের। কখনও কখনও দীর্ঘ সময় পর্যন্ত স্থায়ী হয় যানজটের। দুর্ভোগে অতিষ্ট হয়ে উঠছে সাধারণ মানুষ।

ভূক্ত ভোগীরা জানায়, পৌর শহরের নিমতলা মোড় থেকে ননীগোপাল মোড়, সরকারি কলেজ রোড সহ বিভিন্ন স্থানে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান ঢুকিয়ে রাস্তা দখল করে মালামাল আনলোড করাচ্ছে কিছু ব্যবসায়ীরা। একারণে সাধারণ মানুষের চলাচলসহ পৌর শহরের রাস্তায় যানযাটের সৃষ্টি হচ্ছে। যানজট নিয়ন্ত্রণে নেই কোন ট্রাফিক পুলিশ। ফলে দুর্ভোগে পড়েছে শহরবাসী, স্থানীয় দোকানদার, কর্ম স্থলে যাওয়া মানুষ ও ছাত্র-ছাত্রীরা।

স্থানীয় জুতা ব্যবসায়ী হারুন জানান, আগে কখনও শহরে এমন যানজট দেখা যেত না। শহরে দিনের বেলায় অবৈধভাবে কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক লোড-আনলোড করে চলাচলের কারণে যানজট লেগেই থাকে। যদিও তাদের নিদিষ্ট সময় রাত ৮টা হতে সকাল ৮টা পর্যন্ত। কিন্তু তারা আইন ভঙ্গ করে দিনের বেলা কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক লোড-আনলোড করছে।

স্থানীয় চশমা বিক্রেতা জহুরুল ইসলাম জানান, অনেক সময় কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক লেগে বৈদ্যতিক তার ছিরে পরে যায়, যার ফলে প্রাণহানির আশংখা হতে পারে। এ বিষয়ে কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক ড্রাইভার কে জানালে তারা বলে আমরা সাবধানেই চলাচল করি। ফুলবাড়ী শহরে দিনের বেলা ঢুকতে যেহেতু কোন বাঁধা নাই তাই তারা দিনের বেলা ঢুকে মালামাল আনলোড করে।

ফুলবাড়ীবাসী অনেকেই জানায়, ফুলবাড়ীর শহরের বাহিরে অন্য শহরে দিনের বেলা ট্রাক বা কাভার্ড ভ্যান ঢুকতে গেলে ট্রাফিক ও সার্জেন্ট পুলিশের কাছে জরিমানা দিতে হয়। কিন্তু ফুলবাড়ীতে ট্রাফিক পুলিশ না থাকার কারনে এ ধরনের সমস্যা থেকে নিয়ন্ত্রণ পাওয়ার উপায় নাই। তারা ফুলবাড়ী শহরে বিভিন্ন স্থানে ট্রাফিক মোতায়েনের দাবী জানিয়ে বলেন, দিনের বেলায় শহরে কাভার্ড ভ্যান- ট্রাক প্রবেশ বন্ধ করা হলে দুর্ভোগ কমবে বলে তারা অভিমত ব্যক্ত করেন। কর্ম স্থলে যাওয়া মানুষ ও ছাত্র-ছাত্রীরা জানায়, যানজটের ফলে আমাদের মূল্যবান কাজের ও পড়াশুনার ক্ষতি হচ্ছে।

এব্যাপারে ফুলবাড়ী পৌর মেয়র মুর্তুজা সরকার মানিক বলেন, শহরে ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় ফুলবাড়ীতে রাস্তা দখল করে দিনের বেলায় ট্রাক-কাভার্ড ভ্যানের মালামাল লোড-আনলোড নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ট্রাফিক পুলিশ প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ জন্য তিনি পুলিশ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মোকছেদ আলী জানায়, ২০০৩ সালে ফুলবাড়ী থেকে ট্রাফিক পুলিশ প্রত্যাহার করা হয়। এর পর ১৪ বছর কেটে গেলেও এখন পর্যন্ত ফুলবাড়ীতে ট্রাফিক পুলিশ দেয়া হয়নি। ট্রাফিক পুলিশ না থাকায় চলাচলরত যানবাহনগুলো চলছে তাদের ইচ্ছেমতো, ফলে যানজট দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফুলবাড়ী থানার ৩ সদস্যের একটি দল সর্বদায় সড়কে দায়িত্বে থাকেন। কিন্তু মাত্র ৩ জন লোক দিয়ে সব জায়গায় দায়িত্ব পালন করা সম্ভব হয় না।
ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি/২৬শে জুলাই, ২০১৬ ইং