শুক্রবার  ২৭শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   শুক্রবার  ১৪ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

প্রচন্ড তাপদাহেও জমে উঠেছে বরিশালের ঈদ বাজার

জুন ২৮, ২০১৬

বরিশালের ঈদ বাজার

প্রচন্ড তাপদাহ ও যানজটে অতিষ্ঠ বরিশালের ঈদ বাজারের মানুষ। সীমাহীন এ ভোগান্তি থেকে কিছুতেই রেহাই মিলছে না নগরবাসীর। তবু রোজা রেখে প্রচন্ড যানজট ঠেলে ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত মানুষ। কেনাকাটার ভীরে তাপমাত্রা যেন আরও বেড়েছে । বরিশাল আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষেক আব্দুল কুদ্দুস জানান, সূর্য তাপ বেশি দিচ্ছে তাই একটু বেশি উত্তাপ মনে হচ্ছে। রোববার ৩৪ দশমিক ৮ ও গতকাল সোমবার ৩৩ দশমিক ৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা বিরাজ করেছে।

বরিশালের নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, বরিশালের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল¬াবাদ থেকে শুরু করে নগরীর প্রানকেন্দ্র পর্যন্ত ভরা থাকে যানবাহনে। বিশেষ করে ব্যাটারীচালিত অটোরিক্সাগুলোর কারণে বেশী যানজট বলে জানিয়েছেন অনেকে। নগরীর রাজপথ থেকে শুরু করে আশপাশের সড়কগুলোতেও এখন শুধু যানজট আর যানজট। সবমিলিয়ে যানজটে জান যায় যায় অবস্থা নগরবাসীর। বছরের অন্যান্য সময়ের চেয়ে রমজানে ভ্রাম্যমান মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া এবং যানবাহনের অতিরিক্ত চাপকে দায়ী করছে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। বিএমপি’র ট্রাফিক বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ঈদকে সামনে রেখে নগরীতে অবৈধ অটোরিক্সা ঢুকে পড়া, ভ্রাম্যমান দোকানপাট বেড়ে যাওয়াসহ বেশ কয়েকটি কারণ যানজটের জন্য দায়ী। বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকায় কয়েক লক্ষাধিক মানুষ স্থায়ী ভাবে বসবাস করেন। জানা গেছে, বরিশাল মহানগরীতে প্রায় ১৫ হাজারের বেশী রিক্সা ও অটো রিক্সা চলাচল করে। যার মধ্যে অবৈধ অটোরিক্সাই রয়েছে প্রায় ১হাজার ৭’শ। এগুলো বিএমপি’র ট্রাফিক বিভাগের টোকেন সিস্টেমে চলে বলে অভিযোগ রয়েছে। যত্রতত্র যানবাহন দাড় করিয়ে যানজট সৃষ্টি করে থাকে। এর বাইরে যানজটের অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা দেয় ঈদ মার্কেট কেন্দ্রীক যানজট। গৃহীনিসহ যারা মাসের খুব কম সময় ঘরের বাইরে বের হন, ঈদ সামনে রেখে তারা পুরো মাস ব্যাস্ত থাকে কেনাকাটায়। এতে নগরজুড়ে যোগ হয় বাড়তি চাপ। তার মধ্যে প্রচন্ড গরমে হাফসে উঠেছে নগরবাসী।

যানযট নিরশনে সর্বাত্ত্বক চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) আবু সালেহ মোঃ রায়হান। তিনি জানিয়েছেন, নগরীতে ঈদ উপলক্ষে নগরীতে ৭০ জন ট্রাফিক পুলিশ সদস্য কাজ করছে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ন স্থানে বসানো হচ্ছে চেক পোষ্ট। উদ্দেশ্য নগরীতে অবৈধ যানবাহন প্রবেশ বন্ধ করা এবং অনাকাংখিত ঘটনা এড়ানো। ট্রাফিক প্রধান বলেন কিছু দিন পর লঞ্চ ঘাট ও বাস টার্মিনালে ঘরমুখী যাত্রীদের চাপ বাড়তে শুরু করবে সে সময় এই দুই স্থানে যানযট নিরসনে বিশেষ ব্যবস্থা প্রয়োগ করা হবে।

এ ব্যাপারে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার জানান, নগরীতে যানজটের প্রধান কারন অটো রিক্সা চলাচল বিষয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হবে। অবৈধ যান আটক ও সড়কের ফুটপাত দখলমুক্ত রাখতে তাদের কর্মীরা মাঠে রয়েছে

বরিশাল ব্যুরো: ২৮শে জুন, ২০১৬ ইং