বুধবার  ২৫শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   বুধবার  ১২ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

জুলাই ১৮, ২০১৬

রহস্যজনক মৃত্যু

এমরান আলী সজীবঃ নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে তানযিমুল উম্মাহ হিফজুল মাদ্রাসায় এক ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। নিহত ছাত্রের নাম আশিকুর রহমান সিয়াম (৮)। রবিবার রাত ৮ টায় আটি ওবায়দা কলোনী এলাকায় হাবিবুল্লাহ ভবনের সামনে শিশুটিকে নিথরভাবে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। পরে তারা ওই ভবনের ৬তলায় থাকা মাদ্রাসার শিক্ষকদের খবর দিলে এলাকাবসীসহ ছাত্রটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্য ডাক্তার মেহেদি হাসান ছাত্রটিকে মৃত ঘোষনা করেন। নিহত সিয়াম পাঠানটুলি কুমিল্লা পট্টি এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে। সে ২ বছর যাবত এ মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্র হিসাবে অধ্যয়নরত ছিলো। এদিকে পরিবারের দাবি মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষ সিয়ামকে হত্যা করেছে। তবে মাদ্রাসার মক্তব বিভাগের শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন দাবি করেন সিয়ামের ছাদ থেকে পরে মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় নিহতের পরিবার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মু. সরাফত উল্লাহকে হত্যাকান্ডের ঘটনা জানালেও যথাসময়ে পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় পুলিশের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন করেছে পরিবারটি।

নিহত সিয়ামের বাবা লুৎফর রহমান জানান, রোবরার সকালে ছেলে সিয়ামকে মাদ্রাসায় দিয়ে যাই। রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষ ফোন করে জানায় সিয়াম অসুস্থ। হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এসে দেখি আমার ছেলে মৃত। মাদ্রাসার লোকজন আমার ছেলেকে হত্যা করেছে। আমি বিচার চাই।

এদিকে মাদ্রাসার মক্তব বিভাগের শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন জানান, রাত সাড়ে ৭ টার দিকে এক জন পথচারি সিয়ামকে নিয়ে এসে বলে এ ছাত্রটি আপনাদের। আমরা সিয়ামকে দেখতে পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসি। ডাঃ সিয়ামকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। তবে কিভাবে সিয়ামের মৃত্যু হয়েছে তা আমরা বলতে পারবনা। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে সে ছাদ থেকে পড়ে মারা গেছে।

নিহত সিয়ামের খালা ফাহিমা জানান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসিকে জানিয়েছি। রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত হাসপাতালে লাশ নিয়ে পুলিশের অপেক্ষায় থাকলেও কোনো পুলিশ আসেনি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মুঃ সরাফাত উল্লাহ জানান, বিষয়টি আমি জেনেছি। এ বিষয়ে পুলিশ খোঁজ নিয়েছে। তবে এঘটনায় কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা/ ১৮ই জুলাই, ২০১৬ ইং