বৃহস্পতিবার  ২৯শে জুন, ২০১৭ ইং  |   বৃহস্পতিবার  ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

কেশবপুর পৌর সভার ৯০ ভাগ এলাকা বন্যা

আগস্ট ১৪, ২০১৬

কেশবপুর

এ এম রাকিব/
কেশবপুর পৌর এলাকার বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে শনিবার সকালে পৌরসভার মেয়র সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। পৌরসভা ভবনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় অতিবর্ষনে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে পৌরবাসির চরম দূর্ভোগের কথা বর্ননা করে মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর আহবান জানিয়েছেন।

তিনি জানান, প্রায় এক সপ্তাহ যাবত পৌর সভার প্রায় ৫ হাজার প্ররিবার পানিবন্ধী অবস্থায় অবর্ননীয় দূর্ভোগ পোহালেও সরকারি ভাবে ক্ষতিগ্রস্থদের কোন সাহায্য দেয়া সম্ভব হয়নি। পৌর মেয়র জানান, হরিহর, খোজাখাল ও বুড়িভদ্রা নদীর উজানের পানিতে কেশবপুর পৌর সভার আলতাপোল, ভোগতি, বালিয়াডাঙ্গা, মধ্যকুল, হাবাসপোল, বাজিতপুর, বায়সাসহ ৯টি ওয়ার্ডের প্রায় ৯০ ভাগ এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। শত শত পরিবার বাড়িঘর ছেড়ে বিভিন্ন রাস্তার পাশে আশ্রয় নিয়েছে। পানিবন্ধী মানুষের বাড়িতে হাটু থেকে গলা পানি জমে থাকায় তারা রান্না করে খেতে পারছে না। অধিকাংশ কাচা ঘরবাড়ি ধ্বসে পড়েছে।জলমগ্ন হওয়ায় পৌরএলাকার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। কাঁচা বাজার, মাছ ও মাংস বাজারে পানি ঢুকে পড়েছে।চরম দূর্দশার মধ্যে পৌরবাসি দিনাতিপাতকরছে।

তিনি বলেন, হরিহর, বুড়িভদ্রা ও ভদ্রা নদীতে পলি জমে যাওয়ায় পানি বেরুতে পারছে না। ফলে পৌরবাসি মারাত্মক জলাবদ্ধতার কবলে পড়েছে। তিনি অনেক জায়গায় সাহায্যের আবেদন করলে কোন সাহায্য পাননি। মতবিনিময় সভায় স্থানীয় এনজিও প্রতিনিধিগন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কেশবপুর সদর ইউনিযনের চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আলা জানান, তার ইউনিয়নের মধ্যকুল, আলতাপোল, মাগুরাডাঙ্গা, রামচন্দ্রপুর, ব্যাসডাঙ্গাসহ ৫টি গ্রামের ৩শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।
যশোর প্রতিনিধি/ ১৪ই আগস্ট, ২০১৬ ইং