বৃহস্পতিবার  ২৬শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং  |   বৃহস্পতিবার  ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

আবাদপুকুর হাটে নেই গরু জবাই করার নির্দিষ্ট স্থানঃদূষিত হচ্ছে পরিবেশ

জুন ১৮, ২০১৬

গরু জবাই

আবাদপুকুর হাট নওগাঁ জেলার সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী হাট।এটি রাণীনগর থানার আবাদপুকুরে অবস্থিত ।এখানে সপ্তাহে দুই দিন যথাক্রমে রবিবার ও বুধবারে হাট বসে ।এই হাটে গরু ,ছাগল ,ধান,চাল,হাঁস,মুরগি,সহ সকল প্রকার নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয় বিক্রয় হয়। দেশের বিভিন্ন জেলার চাউল কল মালিক এই হাট থেকে ধান ক্রয় করে নিয়ে যায় । এই হাটের বাৎসরিক ডাক এক কৌটি টাকার ও বেশী ।এখানে প্রতি হাটে কয়েক কৌটি টাকার লেনদেন হয়।হাটকে কেন্দ্র করে এখানে ছোট একটি শহর গড়ে উঠেছে যা একটি ছোট্ট থানা শহর থেকে বড় । কিন্তু দুঃখজনক বিষয় এতো গুরুত্বপূর্ণ হাট হওয়া পরেও এই হাটের ময়লা আবর্জনা ফেলার কোনো নির্দিষ্ট জায়গা নেই ।নেই ভালো পয় নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ।ফলে ভোগান্তিতে পরতে হয় হাটে আগত মানুষদের ।আর সবচেয়ে পিড়াদায়ক এই হাটে গরু -ছাগল জবাই করার কোনো সু-ব্যবস্থা নেই ।এখানে প্রতি হাটে ১০ থেকে ১৫ টি এবং প্রতি সপ্তাহে ৫০ টির মতো গরু-ছাগল জবাই হয়।কিন্তু জবাই করার নির্দিষ্ট জায়গা না থাকার ফলে যত্রতত্র গরু-ছাগল জবাই করতে হচ্ছে ।যার ফলে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ ।যার প্রভাব পরছে হাটে আগত মানুষ ও আসে পাসে বসবাসরত সকল মানুষের উপর ।যার কারণে দীর্ঘ মেয়াদী শারীরিক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ।শারীরিক ক্ষতির কথা চিন্তা করে হাটের আসে পাসে বসবাস রত কিছু জন সাধারণ বছর দুই আগে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা ও স্থানীয় সাংসদ জনাব ইসরাফিল আলম এম.পির কাছে লিখিত অভিযোগ করে ।এবং একটি নির্দিষ্ট স্থানে যেনো গরু -ছাগল জবাই করা হয় সেই ব্যাপারে অনুরোধ করে । উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে চেয়ারম্যানের কাছ থেকে কোনো সহযোগিতা না পেলেও সাংসদ জনাব ইসরাফিল আলম দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া আশাবাদ ব্যাক্ত করেন ।কিন্তু দুঃখজনক বিষয় উক্ত অভিযোগের দুই বছর অতিবাহিত হওয়ার পরেও এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি ।ফলে এখনও চলছে যত্রতত্র গরু-ছাগল জবাই ।সাথে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ ।ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে মানুষ । তাই হাটে আগত জনসাধারণ ও হাটের আশেপাশে বসবাসরত জনসাধারণের দাবী শারীরিক ক্ষতির কথা চিন্তা করে ও হাটের পরিবেশ ভালো রাখার খাতিরে যতো দ্রুত সম্ভব গরু-ছাগল জবাই করার সু-ব্যবস্থা করা হোক ।এবং অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা আবর্জনা ফেলা হোক ।

তানভীর আহম্মেদ (রাণীনগর প্রতিনিধি )-১৮/০৬/২০১৬ইং