সোমবার  ২১শে আগস্ট, ২০১৭ ইং  |   সোমবার  ৬ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

স্বাবলম্বী নারী-বিউটি পার্লারে আয়

এপ্রিল ১১, ২০১৬

নারীর স্বাবলম্বী

ই বাংলা পরিকল্পনা প্রতিবেদনঃ-

বর্তমান তরুণ-তরুণীরা অনেক বেশি সৌন্দর্য সচেতন। সৌন্দর্যের প্রতি প্রায় সব মেয়েদেরই দুর্বলতা রয়েছে। তাই মেয়েরা যেমন সাজতে পছন্দ করে তেমনি সাজাতেও পছন্দ করে। ফ্যঅশন ও রুপ সচেতনতায় যুগে বিউটিশিয়ানদের ব্যাপক চাহিদা , রয়েছে। তাই আপনিও এ পেশায় ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে বিউটি পার্লার দিতে পারেন। বর্তমানে কলেজ, ইউনিভার্সিটিতে পড়–য়া অনেক তরুণ-তরুণী পড়াশোনার পাশাপাশি বিউটিশিয়ান হিসেবে কাজ করছে। মেয়েদের জন্য এটা একটি চমৎকার পেশা। বিউটি পার্লারে যেমন লাভ তেমনি আবার খুব বেশি পুঁজিরও রকার হয় না।

স্থান নির্বাচনঃ

যেকোন ব্যবসার জন্য জায়গায় নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ আপনি যেখানে ব্যবসা করবেন যে স্থানটি যদি লোক সমাগমের অনুকূল না হয় তা হলে আপনি আপনার ব্যবসায় সাফল্য লাভ করতে পারবেন না। তাই বিউটি পার্লারের জন্য স্থান নির্বাচনের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ । তাই যেখানে বেশি গ্রাহক পাওয়া যাবে সেখানে বিউটি পার্লার দিতে পারেন। এক্ষেত্রে সপিংমল, আবাসিক এলাকা, পাড়া বা মহল্লার মতো স্থানে বিউটি পার্লার প্রতিষ্ঠা করতে পারেন। যেহেতু আপনার ব্যবসার প্রধান গ্রাহক হল মেয়েরা সেহেতু পার্লারটি আপনার বাসাবাড়ি থেকেই শুরু করতে পারেন।

পরিকল্পনা

বিউটি পার্লার দেয়ার আগে আপনাকে পরিকল্পনা করে ব্যবসায় নামতে হবে। তা না হলে আপনি সুবিধা করতে পারবেন না। কারণ কোন কাজই পরিকল্পনা ছাড়া চলতে পারে না। সফল হতে চাই সঠিক পরিকল্পনা। পার্লার দেয়ার জন্য আপনার কয়েকজন সহযোগীর দরকার হবে। এক্ষেত্রে আপনি কেমন সহযোগী নিয়োগ দেবেন তার কিছু পরিকল্পনা করে নিতে হবে। তাদের কেমন যোগ্যতা থাকতে হবে, কোন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছে, কেমন দক্ষতা আছে, চারিত্রিক গুণাবলী কেমন ইত্যাদি যাচাই করে নিতে হবে। এবং বিউটিপার্লার সম্পর্কে তাদের ভাল জ্ঞান থাকতে হবে। আবার কেমন বেতন দেবেন এসব বিষয়গুলোকে পরিকল্পনা মাফিক করতে হবে। আবার ব্যবসার পরিসর বাড়ানো বা কাজের সুনামের জন্য সপ্তাহে একদিন একজন নামি বিউটিশিয়ানকে আপনার পার্লারে বসাতে পারেন। এতে পার্লারের গ্রাহক ও খ্যাতি দুটোই আসতে পারে। আবার আপনার পার্লারে কেমন সেবা চলছে তা যাচাই করার জন্য কয়েটি পার্লার থেকে মূল্যতালিকা সংগ্রহ করে যাচাই করতে পারেন। যেন অন্য পাল্যারের সাথে আপনার পার্লারের মূল্য সামঞ্জস্য থাকে। আবার রূপচর্চার সময় গ্রহকদের পছন্দ-অপছন্দের দিকে নজর রাখতে হবে। যাতে করে তাদের মনে কোনরূপ বিরক্ত বোধ সৃষ্টি না হয়।
প্রয়োজনীয় উপকরণঃ
পার্লার দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতির প্রয়োজন। সর্ব প্রথম যেগুলো কিনতে হবে তার মধ্যে হল বড় আকারের কয়েকটি লুকিং গ্লাস, বিশেষ ধরনের রিভলভিং চেয়ার, পানি গরম করার যন্ত্র, বিউটি ট্রিটমেন্টে দেওয়ার জন্য কিছু যন্ত্রপাতি, স্পা করার জন্য কয়েকটি বড় তোয়ালে, পানি রাখার জন্য গামলা, হেয়ার মেশিন, ইত্যাদি সব যন্ত্রপাতি প্রয়োজন হবে। আপনি উপরের উপকরণগুলো কিনে প্রাতমিকভাবে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।
প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঃ
প্রতিটি ব্যবসার শুরুতেই প্রয়োজন হয় বৈধ কাগজ বা অনুমোদনের। কারণ বৈধ কাগজ ছাড়া ব্যবসা করতে যাওয়ার কোন মানে হয় না। আর এই বৈধ কাগজ ছাড়া ব্যবসা করতে যাওয়ার কোন মানে হয় না। আর এই জন্য আগে থেকে সঠিক কাগজপত্রের দরকার। বিউটিপার্লার দিতে হলে প্রথমে আপনাকে ট্রেড লাইসেন্স করে নিতে হবে। এছাড়াও প্রয়োজনীয় অনুমোদন নিযে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।
পরামর্শ ঃ
যারা এই পেশায় নতুন তাদের জন্য আমার পরামর্শ হল বিউটিপার্লার সম্পর্কে একটি ভাল ধারনা থাকতে হবে। শিক্ষিত হতে হবে, থাকতে হবে ধৈর্য্য, হার্ডওয়ার্কিং করার মানসিকতা, পজেটিভ চিন্তা, নিজের প্রতি কনভিডেন্স থাকলে অবশ্যই সফলতা পাবেই। এ পেশায় আসার আগে অবশ্যই কিভাবে শুরু করবে সে সম্পর্কে একটি পরিকল্পনা ও কোন স্থানে বিউটিপার্লার দিবে তার একটি খসড়া তৈরি করে নিতে হবে। আমি মনে করি, সমাজে নারীদের প্রতিষ্ঠিত হওয়া খুবই জরুরি। সমাজে নানা কারনে তারা অবহেলিত। আর এই অবহেলা থেকে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে অবশ্যই তাকে কাজ করতে হবে।যারা এই পেশায় আসতে চান। তারা অবশ্যই আগে থেকে পরিকল্পনা করে আসতে হবে। কারন আপনি যেখানে বিউটিপার্লার দেবেন। সেই স্থানের উপর সফলতা নির্ভর করে। এ পেশায় ভাল করতে চাইলে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার প্রয়োজন, আবার অনেকে কোন প্রশিক্ষন বা কাজের অভিজ্ঞতা ছাড়াই শুরু করতে চান। এটা ঠিক নয়।
আয় ঃ
প্রাথমিক অবস্থায় আপনি ৫০ হাজার টাকা নিয়ে শুরু করতে পারেন। এরপর আস্তে আস্তে ব্যবসাকে প্রসারতি করতে পারেন। আবার বাসায় বসেও এ ব্যবসা করা যায়। বিউটিপার্লারের চাহদিা বর্তমানে বেশ ভাল, আপনি যদি এই চাহিদা অনুযায়ী ভাল সেবা দিতে পারেন তবে লাভ হবেই।বউিটিপার্লার থেকে মাসে অনায়াসেই ১৫-২০ হাজার টাকা আয় করতে পারেন। আবার দিনে দিনে যত পরিচিতি বাড়বে তত আয়ের পরিমানও বাড়বে। বিউটিপার্লারের পরিচিতি বাড়ানোর জন্য পোস্টার বা প্রচারপত্র ছেপে আশেপাশের এলাকায় টানিয়ে দিতে পারেন। গ্রাহকদের কি কি সেবা বা ছাড় সুবিধা দেয়া হচ্ছে তা প্রচারপত্রে উল্লেখ করতে পারেন। এছাড়া দৈনিক পত্রিকাগুলোতে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।