বৃহস্পতিবার  ২৪শে আগস্ট, ২০১৭ ইং  |   বৃহস্পতিবার  ৯ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

এইমাএ পাওয়া

ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুরে ব্যবসায়ীকে বেধড়ক মারপিট চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৬

মামলা

।।শরিফুল ইসলাম / ঠাকুরগাও প্রতিনিধি ॥

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় এক ব্যবসায়ীকে সারা রাত আটকে রেখে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মিজানুর রহমান নামের ওই ব্যবসায়ী বাদী হয়ে উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. মর্তুজা ও স্থানীয় পহির উদ্দীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি আমলে নিয়ে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সুকান্ত সাহা তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য হরিপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।
ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান বলেন, তাঁর সাথে স্ত্রী মর্জিনা বেগমের পারিবারিক ঝামেলা হয়। এ কারণে তাঁর স্ত্রী হরিপুর উপজেলার ভাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো নোটিশ ছাড়াই গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদের দুজন গ্রামপুলিশ সদস্য কাঁঠালডাঙ্গী বাজারে দোকান থেকে ব্যবসায়ী মিজানুর রহমানকে তুলে নিয়ে গিয়ে পরিষদের একটি বদ্ধ রুমে আটক করে রাখে। এরপর রাত ১১টার দিকে চেয়ারম্যান শাহজাহান আলীসহ কয়েকজন ব্যবসায়ীকে লাঠিপেটা করে এবং সারারাত তাকে ওই বদ্ধ রুমে আটকে রাখা হয়।

পরদিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বদ্ধ রুম থেকে মিজানুরকে বের করা হয়। এরপর এলাকার প্রায় ২০০ লোকের সামনে ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী, ইউপি সদস্য মো. মর্তুজা ও স্থানীয় পহির উদ্দীন তাকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেন বলে অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী মিজানুর।

এরপর স্থানীয়রা মিজানুর ব্যবসায়ীকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করে।

ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী বলেন, মিজানুর রহমান তার স্ত্রীকে বেধড়ক মারপিট করেন। এ কারণে তার স্ত্রী পরিষদে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। এরপর মিজানুরকে পরিষদে ডেকে আনা হয়। তবে তাকে কোনো ধরনের মারপিট করা হয়নি বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে রানীশংকৈল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. মো. হাসান জামিল ইবনে রউফ জানান, ব্যবসায়ী মিজানুরের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় জখম ছিল। তাকে একদিন চিকিৎসা সেবা দেওয়ার পর মঙ্গলবার বিকেলে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে হরিপুর থানার ওসি রুহুল কুদ্দুস বলেন, আদালতের আদেশ কপি হাতে পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বুধবার ৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ইং